worldtimetech100@mail.com

HSC Suggestion Chemistry 2nd Paper (পরিবেশ রসায়ন- অনুধাবনমূলক)

HSC Suggestion Chemistry 2nd Paper (পরিবেশ রসায়ন- অনুধাবনমূলক)

HSC Suggestion Chemistry 2nd Paper (পরিবেশ রসায়ন- অনুধাবনমূলক)
সকল বোর্ডের জন্য অনুধাবনমূলক প্রশ্নের সাজেশন ২০২৩ ও ২০২৪

উচ্চ মাধ্যমিক রসায়ন দ্বিতীয় পত্র 
অনুধাবনমূলক প্রশ্নের সাজেশন
প্রথম অধ্যায় পরিবেশ রসায়ন



বাস্তব গ্যাসের চাপ আদর্শ গ্যাসের চাপ অপেক্ষা কম কেন?
গ্যাসের গতিতত্ত্বের একটি স্বীকার্য হলো- গ্যাস অণুসমূহের মধ্যে কোনো আকর্ষণ বা বিকর্ষণ নেই। এ আকর্ষণ বা বিকর্ষণ না থাকলে আদর্শ অবস্থায় গ্যাসের অণুসমূহ পাত্রের গায়ে যে চাপ প্রয়োগ করতো বাস্তব গ্যাসের ক্ষেত্রে আন্তঃআণবিক আকর্ষণের কারণে তা অপেক্ষা কিছুটা কম চাপ প্রয়োগ করবে। এ কারণে বাস্তব গ্যাসের চাপ আদর্শ গ্যাসের চাপ অপেক্ষা কম।


C3H6O টটোমারিজম ধর্ম প্রদর্শন করে ব্যাখ্যা কর। 
এক বিশেষ ধরনের গতিশীল কার্যকরী মূলক সমাণুতার নাম টটোমারিজম। C3H6O যৌগটি এ টটোমারিজম ধর্ম প্রদর্শন করে। কারণ, প্রোপানোন থেকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে প্রপিন-2-অল এর সৃষ্টি হয়। অর্থাৎ কিটোনীয় মূলক থেকে ইন ও অল মূলকে রূপান্তর ঘটে। তাই প্রোপানোন ও প্রপিন-2-অল পরস্পরের টটোমার। 
C3H6O টটোমারিজম ধর্ম প্রদর্শন করে ব্যাখ্যা কর
 

ইথাইন অম্লধর্মী কেন? 
ইথাইন অণুর কার্বন পরমাণু sp সংকরিত। এতে s এবং p অরবিটালের অনুপাত।।। ক্ষুদ্রাকৃতি 's' অরবিটালের অনুপাত বেশি হওয়ায় অ্যালকাইনে C-H বন্ধনের শেয়ারকৃত ইলেকট্রন যুগল 'C' পরমাণুর নিউক্লিয়াসের অধিকতর কাছে দৃঢ়ভাবে যুক্ত থাকে। তাই দূরে অবস্থিত 'H' পরমাণুটির বন্ধন শিথিল হয়ে যায় এবং এটি ভেঙে H আয়ন হিসেবে সহজে বিচ্যুত হয়। 
ইথাইন অম্লধর্মী কেন?


এসিড মিশ্রিত পানিকে তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী বলা হয় কেন? 
যেসব পরিবাহীর বিদ্যুৎ প্রবাহ পরিবাহীর আয়ন দ্বারা সাধিত হয়, সেসব পরিবাহীকে তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী বলে। তড়িৎ বিশ্লেষণে এসিড মিশ্রিত পানিতে এসিডের কোনো পরিবর্তন বা বায় হয় না। এটি শুধু দ্রবণের মধ্য দিয়ে তড়িৎ পরিবাহিতার কাজ করে। কিন্তু পরিবাহীর বিদ্যুৎ প্রবাহ এসিড মিশ্রিত পানি থেকে অ্যানোডে উৎপন্ন হাইড্রোজেন আয়ন দ্রবণের মধ্য দিয়ে ও ইলেকট্রন তারের মাধ্যমে ক্যাথোডে পৌঁছায়। অর্থাৎ পরিবাহীর বিদ্যুৎ প্রবাহ পরিবাহীর আয়ন দ্বারা সাধিত হয়। তাই এসিড মিশ্রিত পানিকে তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী বলা হয়। 


মোলার দ্রবণ তাপমাত্রা নির্ভরশীল কেন? ব্যাখ্যা কর । 
নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় কোনো দ্রবণের প্রতি লিটার আয়তনে এক মোল দ্ভব দ্রবীভূত থাকলে সে দ্রবণকে ঐ দ্রবের মোলার দ্রবণ বলে। আমরা জানি, যেকোনো দ্রবণের আয়তন তাপমাত্রার উপর নির্ভরশীল তাপমাত্রার বাড়ালে যেকোনো দ্রবণের আয়তন বৃদ্ধি পায়। যেহেতু মোলার দ্রবণের আয়তন স্থির থাকতে হয় অর্থাৎ এক লিটার হয় তাই মোলার দ্রবণ তাপমাত্রা নির্ভরশীল। 


C3H5O কার্যকরী মূলক সমাণুতা প্রদর্শন করে ব্যাখ্যা কর । 
যৌগের অনুস্থিত কার্যকরী মূলকের ভিন্নতার কারণে উদ্ভত সমাণুতাকে কার্যকরী মূলক সমাণুতা বলে । কার্যকরী মূলক সমাগুগুলো ভিন্ন ভিন্ন সমগোত্রীয় শ্রেণির সদস্য হয়ে থাকে । উদ্দীপকের C3H5O সংকেত বিশিষ্ট যৌগের সমাণু হলো 

CH3-CH2-CH2-OH 
প্রোপানল

CH3-CH2-O-CH3 
ইথাইল মিথাইল ইথার
যেহেতু একটি সমাণু ইথার ও অন্যটি অ্যালকোহলীয় সমগোত্রীয় শ্রেণির , সেহেতু C3H5O কার্যকরী মূলক সমাণুতা প্রদর্শন করে ।


দুর্বল অম্লের অনুবন্ধী ক্ষারক শক্তিশালী হয় কেন? 
দুর্বল অম্লের অনুবন্ধী ক্ষারক শক্তিশালী হয়। কারণ দুর্বল অম্ল কর্তৃক প্রোটন ত্যাগের প্রবণতা কম হয়। ফলে দুর্বল অম্লের অনুবন্ধী ক্ষারকের প্রোটনের সাথে যুক্ত হওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। ফলে এটি তীব্র ক্ষারধর্মী হয়। তাই দুর্বল অম্লের অনুবন্ধী ক্ষারক শক্তিশালী হয়।


0.15M HCL দ্রবণের ঘনমাত্রা ppm এককে কত? 
0.15 M ঘনমাত্রার HCL দ্রবণ = 0.15 molL-1HCI 
= 0.15 × 36.5 gL-1
=5.475 gL-1HCL দ্রবণ 
=(5.475×100) mg L-1
=5475mg L-1
=5475 ppm 
অতএব ppm এককে 0.15 M HCl এসিডের ঘনমাত্রা 5475 ppm ।

 
ফেনল অম্লধর্মী কেন?
ফেনল অম্লধর্মী। কারণ ফেনলের বেনজিন চক্র অনুরণন বা রেজোন্যান্স প্রদর্শন করে। এর ফলে ফেনল অণুতে নিম্নোক্ত অনুরণন কাঠামো সম্ভব। ফেনলের অনুরণনের ফলে - OH মূলকের অক্সিজেন পরমাণুটি আংশিক ধনাত্মক চার্জযুক্ত হয়ে পড়ে। এ অক্সিজেন পরমাণুটি O - H বন্ধনের ইলেকট্রনকে আকর্ষণ করে তখন O - H বন্ধন দুর্বল হয়ে H+ ত্যাগ করে। তাই ফেনল অম্লধর্মী হয়। উৎপন্ন ফেনক্সাইড আয়ন অনুরপনের মাধ্যমে সুস্থিত হয়। 

হাকেল নিয়মটি ব্যাখ্যা কর। 
যেসব যৌগের গঠন চেপ্টা বা সমতলীয় বলয়াকারীবিশিষ্ট এবং এ বলয় গঠনকারী পরমাণুসমূহের (4n+2) সংখ্যক সঞ্চরণশীল π ইলেকট্রন দ্বারা আণবিক অরবিটাল সৃষ্টি হয়, তাদেরকে অ্যারোমেটিক যৌগ বলে। এক্ষেত্রে (4n+2) সংখ্যক π ইলেকট্রন, n = 0,1,2,3 ইত্যাদি দ্বারা বেনজিনয়েড বলয় সংখ্যা বা বিষম চাক্রিক বলয় সংখ্যাকে বুঝানো হয়। জৈব যৌগের সমতলীয় বলয়াকার গঠনে সঞ্চারণশীল (4n+2) সংখ্যক π ইলেকট্রনভিত্তিক অ্যারোমেটিক যৌগের এরূপ সংজ্ঞাকে হাকেল নিয়ম বলে।

চামড়ার ট্যানিং-এ লবণ যুক্ত করা হয় কেন? 
কাঁচা চামড়ায় সম্পৃক্ত লবণ পানি দিয়ে সংরক্ষণ করাকে কিউরিং বলে। চামড়ার প্রোটিন জাতীয় পদার্থ, যেমন- কোলোজেন যাতে ব্যাকটেরিয়া দ্বারা পচে না যায় তার জন্য সোডিয়াম ক্লোরাইড যোগ করা হয়। উল্লেখ্য, লবণ জীবাণু রোধক। এজন্য চামড়াকে খনিজ ট্যানিং করার আগে চামড়াকে লবণ ও 1.5% H2SO4 এর মিশ্রিত জলীয় দ্রবণে ডুবানো হয়। তখন কোলোজেনের pH কমে যায়। এর ফলে খনিজ ট্যানিং এর এজেন্টসমূহ সহজে চামড়ার ভেতর প্রবেশ করতে পারে। 

সমগোত্রীয় শ্রেণি বলতে কী বুঝ? 
একই প্রকার মৌল সমন্বয়ে গঠিত সমধর্মী জৈব যৌগসমূহকে এদের আণবিক ভরের ক্রমবর্ধমান সংখ্যামানে অর্থাৎ অনুস্থিত কার্বন পরমাণুর বৃদ্ধিক্রমে সারিবদ্ধ করে এবং প্রত্যেক পাশাপাশি দুটি যৌগের মধ্যে মিথিলিন (- CH2 -) মূলকের পার্থক্য বজায় রেখে যে যৌগ শ্রেণি পাওয়া যায়, তাকে সমগোত্রীয় শ্রেণি বলে। এদের সাধারণ সংকেত CnH2n+ এখানে n= 2, 3, 4, 5 ... ইত্যাদি। 

NaCl প্রবণ তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী- কেন?
যেসব পরিবাহীর বিদ্যুৎ প্রবাহ আয়ন দ্বারা সাধিত হয় তাদের তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী বলা হয়। NaCl-এর দ্রবণ তড়িৎ বিশ্লেষ্য পরিবাহী। একটি এসিড ও তড়িৎরোধী পারে NaCl এর অতি গাঢ় দ্রবণকে নিয়ে অ্যানোড ও ক্যাথোড তড়িৎদ্বার স্থাপন করে তড়িৎ কোষের সাহায্যে পূর্ণ বর্তনী সম্পন্ন করা হয়। এ অবস্থায় তড়িৎ প্রবাহ চালনা করলে দেখা যায় যে, অ্যানোড বা ধনাত্মক তড়িৎদ্বারে Cl2, গ্যাস এবং ক্যাথোড বা ঋণাত্মক তড়িৎদ্বারে Na ধাতু জমা হয়। অর্থাৎ NaCl দ্রবণের তড়িৎ প্রবাহ পরিবাহীর আয়ন দ্বারা সাধিত হয়। এজন্য NaCl দ্রবণ তড়িৎবিশ্লেষ্য পরিবাহী।

HNO2 অপেক্ষা H3PO4 দুর্বল এসিড কেন?
অক্সি এসিডসমূহের কেন্দ্রীয় পরমাণুর ধনাত্মক জারণ সংখ্যা যদি সমান হয় তখন যে এসিডের কেন্দ্রীয় পরমাণুর আকার ছোট তার তীব্রতা বেশি হয়। কেন্দ্রীয় পরমাণুর আকার ছোট হওয়ায় এর চার্জ ঘনত্বের বৃদ্ধি ঘটে। কেন্দ্রীয় পরমাণুর চার্জ ঘনত্বের বৃদ্ধির সাথে সাথে এসিডের তীব্রতারও বৃদ্ধি ঘটে। যেমন- HNO2 ও H3PO4 উভয় এসিডের কেন্দ্রীয় পরমাণুর জারণমান + 5. HNO2 এর কেন্দ্রীয় পরমাণুর P এর আকার H3PO4 ​​​​​​​ এর কেন্দ্রীয় পরমাণুর P এর আকার অপেক্ষাকৃত ছোট হওয়ায় P পরমাণুর তুলনায় N পরমাণুর এর চার্জ ঘনত্ব অধিক হয়। তাই HNO2 অপেক্ষা H3PO4 দুর্বল এসিড

মার্কনিকভের সূত্র উদাহরণসহ লিখ।
মার্কনিতের সূত্র হচ্ছে- অপ্রতিসম অসম্পৃক্ত জৈব যৌগের সঙ্গে অপ্রতিসম বিকারকের যুত বিক্রিয়ায় বিকারক অণুর ঋণাত্মক অংশ সাধারণত কম সংখ্যক হাইড্রোজেন পরমাণুবিশিষ্ট অসম্পৃক্ত কার্বন পরমাণুতে যুক্ত হয়। উদাহরণ : হ্যালোজেন এসিড (HX) এর ঋণাত্মক ও ধনাত্মক অংশ হলো যথাক্রমে x ও H+। কাজেই প্রোপিনের ও HBr-এর বিক্রিয়ায় H-প্রোপাইল ব্রোমাইড ও iso-প্রোপাইল ব্রোমাইড উৎপন্ন হবে। এক্ষেত্রে মার্কনিকভের নিয়ম অনুসারে, প্রধানত প্রোপিনের 1 নং কার্বনের সাথে ধনাত্মক অংশ H+ ও ২নং কার্বনের সাথে ঋণাত্মক অংশ Br যুক্ত হয়েছে। তাই প্রধান উৎপাদ হয়েছেiso-প্রোপাইল ব্রোমাইড।

মৃদু অস্ত্র ও মৃদু ক্ষারকের টাইট্রেশনে কোনো উপযুক্ত নির্দেশক নেই কেন? 
মৃদু অম্ল দ্রবণে মৃদু ক্ষার দ্রবণ ফোঁটায় ফোঁটায় যোগ করলে দ্রবণের pH ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। এক্ষেত্রে প্রশমন বিন্দুর কাছাকাছি এলেও দ্রবণের pH মানের হঠাৎ কোনো বিরাট পরিবর্তন সৃষ্টি করা যায়। না। মূল বিষয়টি হলো এক্ষেত্রে দ্রবণের pH মানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত খুবই ধীর গতিতে বৃদ্ধি পেতে থাকে। ফলে প্রশমন বিন্দু সঠিকভাবে পাওয়া যায় না। তাই এক্ষেত্রে কোনো উপযুক্ত নির্দেশক নেই।


to be continue...........